NarayanganjToday

শিরোনাম

দিনমজুরদেরও দিতে হয় চাঁদা!


দিনমজুরদেরও দিতে হয় চাঁদা!

রূপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইল এলাকায় চাঁদাবাজদের দাপটে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। তাদের হাত থেকে পরিত্রাণ নেই দিন-মজুরি করে খাওয়া মানুষগুলোরও। এবার চাঁদাবাজদের কাছ থেকে রক্ষা পেতে এই দিনমজুরেরা থানায় উপস্থিত হয়ে চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছে।

১৯ মে উপজেলার গোলাকান্দাইল এলাকার দিনমজুরের অর্ধশত একটি দল রূপগঞ্জ থানায় এসে ওই অভিযোগ দায়ের করেন। তারা প্রায় প্রত্যেকেই কিশোরগঞ্জ জেলা থেকে এসে এখানে দিনমজুরি করে জীবিকা নির্বাহ করেন।

তারা জানান, গোলাকান্দাইল এলাকায় ভাড়া থেকে দিন-মজুরের কাজ করলেও এলাকার চাঁদাবাজদের চাঁদা দিতে হয়। চাঁদাবাজরা বুঝে না কে রিকশাওয়ালা, কে ফেরিওয়ালা কে বা রাজমিস্ত্রী। তাদের চাঁদা দিতেই হবে। ওদের দাবিকৃত চাঁদা না পেলে রাস্তায় আটকে মারধর করে বলেও জানান তারা।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গোলাকান্দাইল এলাকার কুখ্যাত সন্ত্রাস, দাঙ্গ-হাঙ্গামাকারী ও মাদক সেবী চাঁদাবাজরা এলাকার ভাড়াটিয়া দিনমজুরদের কাছ থেকে দীর্ঘদিন যাবৎ চাঁদা দাবি করে আসছিল।

চাঁদাবাজরা হলেন, উপজেলার গোলাকান্দাইল এলাকার মৃত ফজলুল হক ওরফে ফজলা পাগলার ছেলে রাশেদুল (৪০), মো. আক্তারের ছেলে ববু মিয়া (৩০) ও মৃত নুর ইসলামের ছেলে রাজু (২৫)সহ অজ্ঞাত আরো ২/৩জন।

দাবিকৃত চাঁদা না দেয়ায় চাঁদাবাজরা লোহার রড, লোহার পাইপ, হকিস্টিক ও লাঠি-সোটা হাতে সজ্জিত হয়ে গত মঙ্গলবার (১৮ মে) দুপুরে বেনু সরকার নামে এক দিন-মজুরকে চায়ের দোকান থেকে টেনে হিচড়ে রাস্তায় নিয়ে মারধর করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে।

বেনু সরকারের ডাক-চিৎকারের আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে চাঁদাবাজরা বেনু সরকারকে হুমকি দিয়ে বলে ওদের দাবিকৃত টাকা প্রতিমাসের ১ তারিখে পরিশোধ করতে হবে এবং এ বিষয়ে কোন মামলা করলে প্রাণে মেরে ফেলবে।

আশপাশের লোকজনের সহযোগিতায় দিনমজুর বেনু সরকার স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করেন।

রূপগঞ্জ তদন্ত (ওসি) জসিম উদ্দিন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপরে