NarayanganjToday

শিরোনাম

ত্বকী হত্যার পলাতক আসামী ভ্রমরের আত্নসমর্পণ


ত্বকী হত্যার পলাতক আসামী ভ্রমরের আত্নসমর্পণ

দেশের আলোচিত মেধাবী কিশোর ও নারায়ণগঞ্জের সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব রাফউর রাব্বির পুত্র সন্তান তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যা মামলার আসামি সুলতান শওকত ভ্রমর স্বেচ্ছায় আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন।

দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পরে বুধবার (১০ মার্চ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের আমলী আদালতের (ক-অঞ্চল) ম্যাজিস্ট্রেট মো. কাওছার আলমের আদালতে তিনি আত্মসমর্পণ করেন। পরে আদালত জামিন আবেদন না-মঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে পাঠায়।

সুলতান শওকত ভ্রমর ২০১৫ সাল পর্যন্ত তিনি জামিনে ছিলেন। জামিনে থাকা অবস্থায় তিনি দেশ ত্যাগ করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এরপর তিনি দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিলেন।

আসামিপক্ষের আইনজীবী রোজিনা আক্তার রীতা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আদালত সুলতান শওকত ভ্রমরের জামিন না-মঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠিয়েছেন। এ মামলায় দীর্ঘ ৮ বছরের তদন্তে তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ৬ মার্চ মেধাবী ছাত্র তানভীর মুহাম্মদ ত্বকীকে নারায়ণগঞ্জে নিজ বাসার কাছ থেকে অপহরণ করা হয়। এর দুইদিন পর ৮ মার্চ শীতলক্ষ্যা নদীর শাখা খালে তার মরদেহ পাওয়া যায়।

ওই ঘটনায় নিহতের বাবা সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বি বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা করেন। উচ্চ আদালতের নির্দেশে র্যাবকে এই মামলার তদন্তের দায়িত্ব হস্তান্তর করে পুলিশ

গ্রেফতারর হন ইউসুফ হোসেন লিটন, সালেহ আহমেদ সীমান্ত, রিফাত বিন ওসমান, তায়েব উদ্দিন জ্যাকি ও সুলতান শওকত ভ্রমরসহ আরও কয়েকজন।

তাদের মধ্যে সুলতান শওকত ভ্রমর ত্বকী হত্যার ঘটনা স্বীকার করে ২০১৩ সালের ১২ নভেম্বর আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। ত্বকী হত্যার দায় স্বীকার করে কীভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে সে ব্যাপারে বিশদ বর্ণনা দেন। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী কিলিং মিশনে ভ্রমরসহ ১১ জন ছিল।

সুলতান শওকত ভ্রমরের দেয়া জবানবন্ধি অনুযায়ী র‌্যাব নগরীর আল্লামা ইকবাল রোডে প্রয়াত সাংসদ নাসিম ওসমানের পুত্র আজমেরী ওসমানের উইনার ফ্যাশনের অফিসে অভিযান চালায়। ওই অফিস থেকে র‌্যাব রক্তমাখা প্যান্ট, গজারির লাঠি ও নাইলনের রশি উদ্ধার করে।

তবে এ জবানবন্দি দেয়ার ১৬ দিন পর ২৮ নভেম্বর ভ্রমর তার জবানবন্দি প্রত্যাহারের জন্য আদালতে আবেদন করেন। এরপর ২০১৫ সালের ২০ মার্চ উচ্চ আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে আত্মগোপনে চলে যান তিনি।

প্রসঙ্গত, সুলতান শওকত ভ্রমর নারায়ণগঞ্জের অন্যতম ধর্নাঢ্য পরিবারের সন্তান। তার প্রয়াত পিতা হাজী মো. সোহরাব মিয়া নগরীর অন্যতম শিল্পপতি। তার মা মেহের নিগার মিতা জাতীয় পার্টির রাজনীতির সাথে জড়িত। নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির সভানেত্রী ও সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্যও ছিলেন।

উপরে